নয়া বেতন না ডিএ যোগে বর্তমান বেতন। কোনটাতে বেশি লাভ?

Spread the love

নয়া বেতন না ডিএ যোগে বর্তমান বেতন। কোনটাতে বেশি লাভ?

লেখক- মলয় মুখোপাধ্যায়।
সাঃ সম্পাদক,
কনফেডালেশন অব স্টেট গভঃ এমপ্লয়িজ (আইএনটিইউসি)

Wb 6th pay commision and salary of govt employee

অনেক বন্ধুর অনুরোধ আসছে, পে-কমিশন লাগু হওয়ার আগে, যাতে আমরা ট্রাবুনালে না যাই। এরা অবুঝ। নয়ত এদের কে বোঝান হচ্ছে, মামলায় গেলে পে-কমিশন আর পাওয়া যাবে না।
কিন্তু আমরা বলছি পে-কমিশন না দিয়েও,সরকার যদি বর্তমান বেতনের উপর আদালতের নির্দেশ মত (AICPI) অনুযায়ি মহার্ঘ ভাতা প্রদান করেন সেক্ষেত্রে নয়া বেতনের থেকেও তা বেশি হবে।
লক্ষ্য করুন: রোপা প্রকাশ করে অর্থমন্ত্রী কি বলেছিলেন?
100 Basic+125% DA+14.22 Salary increase =257/-
Fitman factor 2.57 with three years 3% increments .
Total Salary as on 01.01.20
Rs. 280.90 Round figer Rs.281

এবার বলি: আমরা বেতন কমিশন, ৪ বছর যেমন পেলাম না। মনে করুন আজও তা অধরা। কিন্তু আমরা আদালতের নির্দেশ মত ৫ ম বেতন কমিশনের বকেয়া সহ বর্তমান বেতনের উপর নিয়মিত (AICPI) অনুযায়ি মহার্ঘ ভাতা পেয়ে থাকি। তবে নয়া বেতনের থেকে বর্তমান বেতন বেশি হবে।

লক্ষ্য করুন:* ১|১|১৬ বেতন ১০০+ডিএ ১২৫% = ২২৫ টাকা।
**১|৭|১৬= ৩% ইনক্রিমেন্ট যোগে বেতন ১০৩ টাকা +১৩২% ডিএ = বেতন ২৪০ টাকা।
*** ১|১|১৭ থেকে ৩০|০৬|১৭ ১৩৬% ডিএ যোগে নিয়মিত বেতন।
**** ১|০৭|১৭= ৩% ইনক্রিমেন্ট যোগে বেতন ১০৬ টাকা +১৩৯% ডিএ = বেতন ২৫৩ টাকা।
***** ১|১|১৮ থেকে ৩০|০৬|১৮, ১৪২% ডিএ যোগে নিয়মিত বেতন।
****** ১|০৭|১৮= ৩% ইনক্রিমেন্ট যোগে বেতন ১০৯ টাকা +১৪৮% ডিএ = বেতন ২৭০ টাকা।
*০১|০১|১৯ থেকে
৩০|০৬|১৯, ১৫৪ % ডিএ যোগে নিয়মিত বেতন।
০১|০৭|১৯ =৩% ইনক্রিমেন্ট যোগে বেতন ১১২ টাকা +১৬৫ % ডিএ = বেতন ২৯৭ টাকা।
** ০১|০১|২০ তে (AICPI) অনুযায়ি মহার্ঘভাতা যদি নয়া বেতনে ৫% হয়ে থাকে এবং আমাদের বর্তমান বেতন অনুযায়ি তাকে ১০% ধরা হয়, তখন আমাদের ডিএ হবে ১৭৫%।
এবার আপনি দেখুন আপনার ১১২ টাকার উপর ০১|০১|২০ তে ১৭৫% ডিএ যোগে আপনার বেতন কত হয়।
১১২ টাকা + ১৭৫% ডিএ =৩০৮ টাকা।
এবার একবার ভাবুন আমাদের ডিএ বঞ্চনা কোথায় গিয়ে দাঁড়িয়েছে। নয়া বেতনের থেকে বর্তমান বেতনের উপর AICPI অনুযায়ি মহার্ঘভাতা পেয়ে থাকলে নয়া বেতন কত পেছনে পড়ে থাকছে।
আপনারা হয়ত লক্ষ্য করেছেন, আমাদের ডিএ মামলা প্রেক্ষিত এবারের বেতন কমিশন ঘোষনায় মাননীয়া ডিএ নিয়ে কোনও কথা বলেনি। রোপা মন্ত্রীসভায় পাশ হওয়ার দিন মাননীয় অর্থমন্ত্রীও ডিএ নিয়ে নিশ্চুপ ছিল। আজ
২৭|০৯|১৯ রোপা প্রকাশিত হলেও রোপাতে ডিএ-র “ড” ও কোথাও খুঁজে পাওয়া গেল না।।
সরকার মনে করছেন তাঁরা চালাক আর মামলাকারিরা বোকা। আমরা বলি তাঁরা মুর্খের স্বর্গে বাস করছে।
কারণ সরকার চালাকি আরম্ভ করে দিয়েছেন এবং আমরা তা ধরেও ফেলেছি। সঠিক সময়ে সেই বার্তা আপনাদের কাছে পৌছে দেব।
কাহাবতে আছে চালাকির দ্বারা মহত কাজ হয় না।
একটা কথা মনে রাখবেন বন্ধু। ডিএ পৌণঃপুনিক খরচ। এটা বর্তমান সরকার আমাদের কিছুতেই দিতে চাইবেনা। কিন্তু আমাদের সংগঠন কনফেডারেশন শফত নিয়েছে, ডিএ আমরা আদায় করেই ছাড়ব।
বন্ধুরা দালাল সংগঠনের পাল্লায় পরে আপনারা বিভ্রান্ত হবেন না।
আমাদের উপর ভরসা রাখুন। একমাত্র সুপ্রিম কোর্ট যদি সরকারকে রেহাই দেয়, তবেই আমরা তা মাথা পেতে নেব।।
👏👏সত্যমেব জয়তে।👏👏

Leave a Reply

Your email address will not be published.