মুখ্যমন্ত্রীর অনুরোধে এস.এস.সি প্রার্থীরা অনশন তুলে নিলেও নিয়োগের কাজ বিশ বাও জলে

Spread the love
মুখ্যমন্ত্রীর অনুরোধে এস.এস.সি প্রার্থীরা অনশন তুলে নিলেও নিয়োগের কাজ বিশ বাও জলে

মুখ্যমন্ত্রীর অনুরোধে এস.এস.সি প্রার্থীরা অনশন তুলে নিলেও নিয়োগের কাজ বিশ বাও জলে

৪০০ জন এস.এস.সি প্রার্থীদের ২৯ দিনের অনশন কাঁপিয়ে দিয়েছিল গোটা পশ্চিমবঙ্গ । রোদ জল বৃষ্টিকে উপেক্ষা করে এই অনশন চালিয়ে গেছিলেন এস.এস.সি ওয়েটিং লিস্টে থাকা প্রার্থীরা । সমগ্র সুশীল বঙ্গবাসীর সমর্থন পেয়েছিল সেই অনশন আন্দোলন । শেষপর্যন্ত শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জী থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেই অনশন মঞ্চে আসতে বাধ্য হয়েছিলেন ।

মুখ্যমন্ত্রীর অনুরোধে অনশন  তুলে নেওয়ার পর পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয় তাদের অভিযোগের বিষয়টি যাচাই করার জন্য । এই কমিটির কাছে একাধিক অভিযোগ সম্বন্বিত হলফনামা পেশ করে এস.এস.সি প্রার্থীরা ।

অন্যদিকে অনশন তুলে নেওয়ার সাতদিনের মধ্যে কমিশনের তরফ থেকে বিকাশ ভবনে রিপোর্ট জমা দেওয়ার কথা ছিল । গত ২৮ শে মার্চ এই অনশন তুলে নেওয়া হয়েছিল । আজ ৪ ই এপ্রিল সন্ধ্যা পর্যন্ত পাওয়া খবর অনুসারে এখনও পর্যন্ত কোন রিপোর্ট জমা পরে নি ।

 এস.এস.সি অনশন আন্দলনের সাথে যুক্ত রাকেশ প্রামানিক জানিয়েছেন , “ কমিশনের পক্ষ থেকে ৪-৫ তারিখের মধ্যে আন্দোলনকারীদের সাথে যোগাযোগ করা হবে । কিন্তু এখন পর্যন্ত আমাদের কারোর সাথেই যোগাযোগ করা হয়নি” ।

এই অবস্থায় কমিশনের এই উদাসীনতায় প্রার্থীদের মনে অসন্তোষ তৈরি করেছে । এস.এস.সি যুব ছাত্র অধিকার মঞ্চের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে জুন মাসের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে নিয়োগ না করা হলে বৃহত্তর আন্দোলনে নামা হবে ।

আই.ডি.বি.আই ব্যাংকে ৫০০ অফিসার নিয়োগ । যোগ্যতা – গ্রাজুয়েট । আবেদন চলছে

মুখ্যমন্ত্রীর অনুরোধে এস.এস.সি অনশনকারী প্রার্থীদের অনশন তুলে নেওয়া হলেও নিয়োগের কাজ বিশ বাও জলে

৪০০ জন এস.এস.সি প্রার্থীদের ২৯ দিনের অনশন কাঁপিয়ে দিয়েছিল গোটা পশ্চিমবঙ্গ । রোদ জল বৃষ্টিকে উপেক্ষা করে এই অনশন চালিয়ে গেছিলেন এস.এস.সি ওয়েটিং লিস্টে থাকা প্রার্থীরা । সমগ্র সুশীল বঙ্গবাসীর সমর্থন পেয়েছিল সেই অনশন আন্দোলন । শেষপর্যন্ত শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জী থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেই অনশন মঞ্চে আসতে বাধ্য হয়েছিলেন ।

মুখ্যমন্ত্রীর অনুরোধে অনশন  তুলে নেওয়ার পর পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয় তাদের অভিযোগের বিষয়টি যাচাই করার জন্য । এই কমিটির কাছে একাধিক অভিযোগ সম্বন্বিত হলফনামা পেশ করে এস.এস.সি প্রার্থীরা ।

অন্যদিকে অনশন তুলে নেওয়ার সাতদিনের মধ্যে কমিশনের তরফ থেকে বিকাশ ভবনে রিপোর্ট জমা দেওয়ার কথা ছিল । গত ২৮ শে মার্চ এই অনশন তুলে নেওয়া হয়েছিল । আজ ৪ ই এপ্রিল সন্ধ্যা পর্যন্ত পাওয়া খবর অনুসারে এখনও পর্যন্ত কোন রিপোর্ট জমা পরে নি ।

নেহেরু যুব কেন্দ্রে ২২৫ ক্লার্ক ও গ্রুপ ডি / যোগ্যতা মাধ্যমিক ও গ্রাজুয়েট / আবেদন চলছে

 এস.এস.সি অনশন আন্দলনের সাথে যুক্ত রাকেশ প্রামানিক জানিয়েছেন , “ কমিশনের পক্ষ থেকে ৪-৫ তারিখের মধ্যে আন্দোলনকারীদের সাথে যোগাযোগ করা হবে । কিন্তু এখন পর্যন্ত আমাদের কারোর সাথেই যোগাযোগ করা হয়নি” ।

এই অবস্থায় কমিশনের এই উদাসীনতায় প্রার্থীদের মনে অসন্তোষ তৈরি করেছে । এস.এস.সি যুব ছাত্র অধিকার মঞ্চের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে জুন মাসের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে নিয়োগ না করা হলে বৃহত্তর আন্দোলনে নামা হবে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.